করোনা প্রসঙ্গে পুষ্টির পরামর্শঃ লিখছেন দুর্গাশঙ্কর দীর্ঘাঙ্গী

২-য় পর্ব

করোনা প্রসঙ্গে পুষ্টির পরামর্শ

                 লিখছেন  দুর্গাশঙ্কর  দীর্ঘাঙ্গী

   Durga Sankara Dirghangi
              Consultant Dietician     
   Formerly AGM (Dietician and Medical        Services) SAIL Isp

জনস্বার্থে প্রচারিত(Public awareness)

                       
Suitable diet chart for an young adult, adult of age group from 45 yrs to 60 yrs,
Adolescents 13 to 17 yrs, children 6 to 12 yrs. Suffering from viral fever, /common cold/ pneumonia/Viral fever, flue  or fever,cough&cold chest congestion or other symptoms related to Corona Virus.
………………………………….. ……… ……………….
If we  discuss on the subject fever , answer will be rise of body temperature above the normal and factors are 1) exogenous and
2) endogenous
Exogenous factors: Bacteria or fungi
Endogenous factors: Antigen- antibody reaction, malignancy or graft rejections.

Infection due to bacteria or fungi
                     I
Activation of phagocytes in the bone marrow .
                       I
Release of pyroxene ( fever inducing hormone)           l
       Synthesis of prostaglandins
                        I
Thermoregularatory centre in the anterior           hypothalamus
                          I
Increase in tempeture

Types:
 short duration, fever: cold, influlenza and typhoid. 

Chronic fever ; Tuberculosis
Intermittent : Malaria
জ্বরের সময় বিপাকীয় পরিবর্তন :ঐ
( Metabolic changes in fever)
জ্বরজ্বালার  সময় শরীরের তাপমাত্রা বাড়ার  কারণে আপনার বেশি calorie দরকার।
 প্রয়োজন মত  খাবার না খেলে, গ্লাইকোজেন
সংরক্ষণে র মাত্রা কমে যাবে, শরীরের প্রোটিন
বেশিমাত্রায় ভাঙবে। কিডনির উপর চাপ বাড়বে।
বেশি ঘাম, সোডিয়াম, পটাসিয়াম  বর্জ পদার্থ বেরিয়ে যায়।
(করোনা ভাইরাস জনিত অবস্থায় ইমুইনিটি কমে যায়, শরীরের তাপমাত্রা বাড়তে থাকে, শ্বাসকষ্ট, ডিহাইড্রেশন,  কফ জনিত সমস্যা, ফুসফুস বেশি করে আক্রান্ত হয়। Protein breakdown হয়। অনুখাদ্যের( micro nutrients) ঘাটতি, হজম জনিত সমস্যা হতে পারে। ) করোনা ভাইরাস,
সাধারণ influenza, pneumonia রোগের মতন
infection  হবে। রোগাক্রান্ত ব্যক্তির মতন হাঁচি হবে। কফের droplet   এর মাধ্যমে ভাইরাস ছড়াতে থাকবে।
এমতাবস্থায়  আপনার ক্যালোরির চাহিদা দরকার কারন শরীরের তাপমাত্রা বৃদ্ধির জন্য আপনার টিস্যু ক্ষয় (destruction of tissue)  রোধ করতে
হবে। হ্যাঁ এটা ঠিক প্রথমতঃরুগী বেশি খেতে চাইবে না। দেখা গেছে এই ধরনের কষ্টের সময় বড় জোর
500 cals  থেকে 1400 cals  খাবার সারাদিনে খায়। রুগীর মুখগহ্বরের মধ্যে ঘা, স্বাদ পরিবর্তন এর জন্য দায়ী। 
 উচ্চমানের  প্রোটিন   বেশি করে প্রায় ৭০-৮০ গ্রাম,
( হরলিক্স, কমপ্লান,বর্নভিটা, সেদ্ধ মাছ, মুরগি, সেদ্ধ ডাল,) যারা শাকাহারী(vegetarian) খিচুড়ি ( চাল, বেশি মাত্রায় মেলানো ডাল, সঙ্গে  পেঁপে, গাজর, আলু) খেলে উপকার হবে। দই খাবেন।অন্যান্যরা যাদের হজম জনিত সমস্যা নেই balanced diet   খেতে হবে। vitamin C সমৃদ্ধ পাতিললেবু , আমলা, মুসুম্বি, কমলালেবু, ইত্যাদি খাবেন। যদি একেবারে  তরল জাতীয় খাবার ছাড়া অন্য খাবার নিতে পারে না। তাহ’লে bland soup, Horlicks, milk, glucose water, Lemon water, fruit juice, coconut water, Electrolyte খেতে হবে।

Water/fluid: যথেষ্ঠ পরিমাণ প্রায় 2500ml থেকে
5000ml  সব কিছু ধরে অর্থাৎ সুপার, জল, বেভারেজ, ফলের রস ইত্যাদি।
 অন্যান্য ভিটামিন ও মিনারেল:
B complex vitamin synthesisএর ব্যঘাত ঘটার কারণ antibiotics   ,যা প্রয়োগ করা হয় । vitamin A র  মেটাবলিজম  কমে যায়।
আমাদের দরকার মত ভিটামিন -C  না পেলে রোধ ক্ষমতা কমে যায়।  সে কারণে এই ভিটামিন গুলি
খাবারের  মধ্যে, অথবা suppliment নিতে হবে।

 ক্রমশঃ….
  

Comments

No comments yet. Why don’t you start the discussion?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *